কোনো নেক উদ্দেশ্য পূর্ণ হওয়ার জন্য কোন ধরনের নফল নামাজ আদায় করতে হয়?

মহান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনে বলেছেন, তোমরা ধৈর্য ও সালাতের মাধ্যমে সাহায্য প্রার্থনা করো। -সূরা বাকারাহ। বহু হাদীস এমন আছে যেখানে দেখা যায়, জীবনের যে কোনো প্রয়োজনে আল্লাহর নবী সা. এবং তার সাহাবীরা নামাজে দাঁড়িয়ে গেছেন। নফল নামাজের মাধ্যমে নিজের সকল চাহিদা ও প্রয়োজন আল্লাহর সাহায্যে পূরণ করেছেন। সুতরাং যে কোনো নেক উদ্দেশ্যে নফল নামাজ […]

দুনিয়ার প্রথম মসজিদ কোনটি, প্রথম ইমাম কে, সর্বপ্রথম মোয়াজ্জিন কে?

পবিত্র মক্কা নগরীতে অবস্থিত কাবা ঘরই পৃথিবীর সর্বপ্রথম মসজিদ। প্রথম ইমাম-প্রথম মানব এবং নবী হজরত আদম আ.। দুনিয়ার প্রথম মোয়াজ্জিন হজরত বেলাল ইবনে রাবাহ হাবশী রা.। প্রিয় নবী সা.-এর নির্দেশ তিনিই ইসলামের এবং মানব ইতিহাসের প্রথম মোয়াজ্জিনের দায়িত্ব পালন করেন। সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতাওয়া বিশ্বকোষ। উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর […]

বেতের নামাজ না পড়লে কি গোনাহ হবে

এশাসহ বাকি পাঁচ ওয়াক্তের ফরজ নামাজ না পড়লে যেমন গোনাহ, বেতের না পড়লেও তেমন গোনাহ। কারণ এটি সর্বসম্মতভাবে স্থায়ী ওয়াজিব। কারণ, এ নামাজেরও কাযা আছে। কেউ কাফফারাহ দিলেও বেতেরসহ দিতে হয়। সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতাওয়া বিশ্বকোষ। উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী

বর্তমান আধুনিক জামানায় মুসলমান কী পরিমাণ আরাম-আয়েশ ও বিলাসিতা করতে পারবে?

এ যুগে মুসলমানরা ঠিক ততটুকু আরাম-আয়েশ করতে পারবে, যতটুকু তারা আগের যুগে করতে পেরেছে। নিজে নিজের হালাল উপার্জন থেকে আল্লাহর হক ও বান্দার হক দিয়ে দেয়ার পর আল্লাহর নেয়ামত প্রয়োজন পরিমাণ ভোগ করতে পারবে। বিলাসিতা না করাই ভালো। ভদ্রতা, সৌজন্য ও সুরুচি যতটুকু দাবি করে ততটুকু (গোনাহর বাইরে থেকে সুন্নতের অনুসরণ করে) করতে পারবে। এর […]

ঘুমানোর আগে এমন কি দোয়া পড়া যায় যে, ভালো স্বপ্ন দেখতে পারি? দুঃস্বপ্ন থেকে মুক্তি পাওয়ার আমল কী করা যায়?

ঘুমানোর আগে এশার ফরজ, সুন্নত ও বেতের পড়বেন। রাতে বেশি দেরিতে ঘুমাতে যাবেন না। অজু না থাকলে ঘুমের আগে অজু করে নিন। সম্ভব হলে সূরায়ে মূলক তিলাওয়াত করুন। কিছু তাসবিহ-তাহলিল, দরুদ শরীফ পড়ে নিন। সূরায়ে ফাতিহা, চার কুল ইত্যাদিও পড়া ভালো। এরপর ডান কাত ও কিবলামুখী হয়ে ঘুমের দোয়া পড়ে শুয়ে পড়ুন। আয়াতুল কুরসি যদি […]

আমি আমেরিকায় থাকি, নামাজের সঠিক ওয়াক্ত অনুযায়ী সবসময় নামাজ পড়তে পারি না। ওয়াক্ত পার হয়ে গেলে প্রায়ই ছেড়ে দেই। উত্তরণের উপায় কি?

সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন সঠিক ওয়াক্তে সবসময় নামাজ পড়ে নিতে। কারণ, নামাজের জন্যই আল্লাহ মানুষ সৃষ্টি করেছেন। অন্যসব কাজ অর্থহীন হয়ে যাবে যদি নামাজ ঠিক না থাকে। ওয়াক্ত মতো পড়া না হলে অবশ্যই পরে পড়ে নিন। একদম ছেড়ে দেয়া ঠিক হচ্ছে না। নামাজের প্রতি ভালোবাসা তৈরির জন্য তিনটি কাজ করুন। ১. হালাল উপার্জন, ২. গুনাহ ত্যাগ, […]

আমার বউ পর্দা করতে পছন্দ করে না। বারবার বোঝানো সত্ত্বেও রাজি হচ্ছে না, বা কিছুদিন করে আবার ছেড়ে দেয়। এমতাবস্থায় আমি মুরব্বিদের সহযোগিতা নিয়েও ব্যর্থ হয়েছি, কি করব?

নম্রতার সাথে উপদেশ ও চেষ্টা চালিয়ে যান। কিছুদিন যেহেতু করে পরে ছেড়ে দেয়, আশা করা যায়, একসময় পর্দা করবে আর ছেড়ে দেবে না। আল্লাহর নিকট খাসভাবে দোয়া চালিয়ে যান। একসময় সব ঠিক হয়ে যাবে। ‘ব্যর্থ হয়েছেন’ এমন মনে করা ঠিক হবে না। দীর্ঘ সময় নিয়ে ধৈর্য সহকারে পরিবর্তনের চেষ্টা করা মানুষের মনকে প্রস্তুত করার সঠিক […]

আমার ছেলে আমেরিকায় থাকে। নিয়মিত নামাজ পড়ে না। বললে পড়ে, আবার ছেড়ে দেয়। শুনেছি মাঝে মাঝে মদও পান করে। তার পাঠানো টাকায়ই আমি চলি। আমার কী করা উচিত? কবরের আজাব থেকে আমি রক্ষা পাবো কি না?

আপনার জন্য ছেলের পাঠানো টাকা ব্যবহার করা সম্পূর্ণ জায়েজ। যদি সে নামাজ না-ও পড়ে, মাঝেমধ্যে মদও পান করে। যদি আপনি তার উপার্জন হালাল হওয়ার ব্যাপারে সন্দিহান না হন, তাহলে নির্দ্বিধায় তার টাকা ব্যবহার করবেন। যদি তার কামাই হালাল-হারাম মিশ্রিত হয়, তাহলে আপনি হালাল অংশ থেকে নিচ্ছেন ভেবে তার টাকা নিন। নামাজের জন্য তাকে বলতে থাকুন, […]

বিধর্মীদের উৎসবে চাঁদা দান বৈধ কি না। এখন বিষয়টি প্রায় নরমাল হয়ে গেছে। উৎসব এলেই চাঁদা তোলা হয়। অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তি চাঁদা দানে উৎসাহ দেন। ইসলাম এ বিষয়ে কী বলে?

বিধর্মীদের পূজা উপসনায় চাঁদা দেওয়া নিষিদ্ধ ও ঈমানের জন্য ক্ষতিকর। কারণ এতে শিরকের মধ্যে অংশগ্রহণ হয়ে যায়। তবে, তাদের ধর্মীয় বিষয় ছাড়া সামাজিক ও মানবিক কোনো কাজে চাঁদা দেওয়া যায়। যারা উৎসাহিত করেন, তাদের ধর্মীয় জ্ঞানের অভাব রয়েছে। দীনি শিক্ষা প্রসারের মাধ্যমে তাদেরকে বোঝাতে হবে। জনগণকেও শিরকের মধ্যে অর্থ সাহায্য দেওয়া আর মানবিক কারণে সাহায্য […]

দোয়া ও মোনাজাতের সময় মহানবী সা. এর উছিলা দেওয়া কি নিষিদ্ধ। আমরা এভাবে দোয়া করে অভ্যস্থ। এখন টিভিতে কিছু আলেম নবীর উছিলা দেওয়াকে হারাম বলছেন। আমাদের মনে শান্তি আসছেনা। শরীয়ত কি বলে?

যারা দোয়া মোনাজাতে মহানবী সা. এর উছিলা দেওয়া হারাম বলেন, সম্ভবত তারা একটি ভুল আকীদাকে প্রতিহত করার জন্য বলে থাকেন। যা আমাদের সমাজে নেই বললেই চলে। আমাদের মাঝে নবী করিম সা. এর ওপর দুরুদ ও সালাম পাঠ করা দোয়ার প্রাণ। এক হাদীসে আছে, জনৈক সাহাবী প্রশ্ন করেন, হে নবী আমি কি আমার দোয়ার চারভাগের একভাগ […]

ছোট বেলায় একজন ১০০ টাকা চুরি করে আমাকে ৫০ টাকা দিয়েছিল। অভাব ছিল তাই নিয়েছিলাম। কিন্তু গত দুই বছর আগে যার টাকা চুরি হয়েছিল, তাকে আমি টাকাটা দিতে চেয়েছিলাম এবং মাফও চেয়েছিলাম। কিন্তু সে টাকাও নেয়নি মাফও করেনি, এখন আমি কি করব?

অভাবে ছিলেন এবং ছোটবেলা এ কাজটি করেছিলেন। এখন অনুতাপ হচ্ছে। হাদীস শরীফ অনুযায়ী এটিও তওবা। মানুষের হক তওবার দ্বারা মাফ হয় না। এর ক্ষতিপূরণ দিতে হয়। আপনি ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও চেষ্টা করেছেন। তদুপরি ক্ষমা চাইতে হয়, আপনি তাও করেছেন। এখন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির উচিত টাকা গ্রহণ করা ও আপনাকে ক্ষমা করা। কিন্তু সে সময় এই একশ টাকার […]

সুন্নত নামাজ সব সময় ছেড়ে দিলে কী ধরনের গুনাহ হয়?

সুন্নত নামাজ দুই প্রকার। ০১. সুন্নতে মুআক্কাদাহ, ২. সুন্নতে জায়েদাহ। সুন্নতে জায়েদাহ ছেড়ে দিলে গুনাহ হয় না। এটি মুস্তাহাবের মতো। পড়লে সওয়াব, না পড়লে গুনাহ নেই। যেমন আসরের আগের চার রাকাত সুন্নত। সুন্নতে মুআক্কাদাহ অর্থ যেসব সুন্নত নামাজ নবী করিম সা. কখনোই ছাড়েননি। এর মর্যাদা প্রায় ওয়াজিবের মতো। যা ছাড়লে গুনাহ হয়। এসব সুন্নত ছাড়লে […]

কোনো ব্যক্তি জেনে শুনে হারাম অর্থ মসজিদ নির্মাণে ব্যয় করছে, আখেরাতে তার এ দিয়ে কোনো ফায়দা হবে কিনা?

হারাম অর্থ দিয়ে কোনো সওয়াব আশা করা যায় না। জেনে শুনে সওয়াব আশা করলেও ঈমানের ক্ষতি হয়। অতএব, এ ক্ষেত্রে আখেরাতে ফায়দা হওয়ার কোনো সম্ভাবনা দেখা যায় না।

একটি ছেলে একটি মেয়েকে গোপনে বিয়ে করেছে। দু’জন অমুসলিম এ বিয়েতে সাক্ষী ছিল। এটা শরীয়ত মোতাবেক সঠিক হলো কিনা?

গোপনে কোনো বিয়ে হওয়াই ঠিক নয়। কেননা, বিয়ের ঘটনাটিকে যথাসম্ভব ফলাও প্রচার করার নির্দেশ ইসলামে রয়েছে। যাতে গোপনে কোনো দুষ্কর্মকে কেউ বিয়ের নামে চালিয়ে দিতে না পারে। আর এ ধরনের গোপন বিয়ে এড়ানোর জন্যেই কমপক্ষে দু’জন সাক্ষীর শর্ত বিয়ে সঠিক হওয়ার জন্য জুড়ে দেয়া হয়েছে। বিয়ের ক্ষেত্রে অমুসলিমদের সাক্ষ্য গ্রহণযোগ্য নয়। এ বিয়েটি শুদ্ধ হয়নি। […]

ফেরাউন শব্দের অর্থ কি? বিভিন্ন নবীর সময় ফেরাউনের অস্তিত্ব পাওয়া যায়, তারা কি সবাই একই ব্যক্তি না ভিন্ন ভিন্ন?

প্রাচীণ মিসরের কিবতী বা মৎসজীবী সম্প্রদায়ের শাসক বংশের উপাধি ফেরাউন। ইংরেজীতে এদের ফারাও বলা হয়। ফেরাউন শব্দটি ফারউন শব্দ থেকে নির্গত। এর অর্থ শাখা-প্রশাখা। ফেরাউন শব্দের মর্মগত অর্থ রাজবংশের শাখা তথা উত্তরাধিকারী। পরিভাষায়: প্রাচীন মিসরের রাজপুরুষ। ইতিহাসে যতজন ফেরাউনের উল্লেখ রয়েছে এরা প্রত্যেকেই ভিন্ন ভিন্ন ব্যক্তি। বলা হয়, হযরত মুসা আ. এর জীবনেই দু’জন ফেরাউনের […]

কারবালা প্রান্তর কোন দেশে অবস্থিত? সিমার এবং ইয়াজিদের পরিচয় জানতে চাই

কারবালা প্রান্তর ইরাকে অবস্থিত। ইরাকের কুফা নগরীর সন্নিকটবর্তী ফোরাত নদীর তীরে এই ময়দান একটি উপকূলীয় বালুকাবেলা। ইয়াজিদ মুসলিম বিশ্বের শাসক। বিশিষ্ট সাহাবি হজরত মোআবিয়া রা.-এর পুত্র। হজরত হোসাইন রা.-এর প্রতিদ্বন্দ্বী জন ধীকৃত নেতা। সিমার তার অন্যতম সেনাপতি ও সাম্রাজ্যের পূর্বাঞ্চলীয় প্রতিরক্ষা প্রধান।

কবিরা গোনাহ কী কী বিস্তারিত জানতে চাই

গোনাহ বা পাপ বোঝাতে আল কুরআনে দু’টি শব্দের বহুল ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। এর একটি হলো ‘ইছমুন’। এর বহুবচন ‘আছামুন’। আর দ্বিতীয়টি হলো ‘জানবুন’। এর বহুবচন ‘জুনুবুন’। ‘ইছমুন’ শব্দটি আল কুরআনে বিভিন্ন আঙ্গিকে সর্বমোট ৪৪ বার ব্যবহৃত হয়েছে। অপরদিকে ‘জানবুন’ শব্দটি বিভিন্ন আঙ্গিকে আল কুরআনে এসেছে ৩৯ বার। এই দু’টি শব্দের দ্বারা সকল শ্রেণির গোনাহ […]

বিধবাদের ক্ষেত্রে গহনার যাকাতের মাসআলা কি? হীরার তৈরী গহনার যাকাত দিতে হবে কি?

বিধবা যদি যাকাতের নেসাব পরিমাণ মালের মালিক হন, তাহলে তারও যাকাত দিতে হবে। এক্ষেত্রে গহনাও শামিল। হীরার তৈরী গহনারও বাজার মূল্য ধরে যাকাত দিতে হবে। সূত্র: জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফতওয়া বিশ্বকোষ।

আমি একজন তালাকপ্রাপ্তা, আমার পূর্বের স্বামী হতে পাওয়া অনেক সোনা-গহনা আছে। যাকাত দিতে হবে কি না?

আপনি যেই হোন, আর যেখান থেকেই প্রাপ্ত হন, যদি আপনার মালিকানায় নেসাব পরিমাণ সোনা-গহনা থাকে তাহলে যাকাত বর্ষ পূর্ণ হলে আপনার যাকাত দিতে হবে। সূত্র: জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফতওয়া বিশ্বকোষ।

এক অজু দিয়ে জোহর থেকে মাগরিব পর্যন্ত নামাজগুলো পড়লে কি বিশেষ কোনো সওয়াব পাওয়া যাবে? এক্ষেত্রে অজু ভেঙ্গে গেলে কোনো ক্ষতি হবে কি?

এক অজু দিয়ে অধিক নামাজ পড়ার মধ্যে কোনো সওয়াব নেই। একাধিক ওয়াক্তের নামাজ এক অজু দিয়ে পড়ার বিষয়টিও কোনো ফযিলতের নয়। এমন অজু ভেঙ্গে গেলে কোনো ক্ষতিরও সম্ভাবনা নেই। স্বাভাবিকভাবে যদি অজু থেকে যায়, তাহলে তা দিয়ে যত ওয়াক্ত সম্ভব নামাজ পড়া চলে। মাঝে অজু করার প্রয়োজন হলে বারবার অজু করতে কোনো দোষ নেই। এখানে […]

মানব জীবনে সত্যবাদিতার প্রভাব কতখানি?

সত্যবাদিতা ঈমানের প্রথম ও প্রধান শর্ত। যেখানে সত্যবাদিতা নেই, সেখানে ঈমান নেই, ইসলামও নেই। আমরা নিজেদেরকে মুসলমান বলে দাবি করছি কিন্তু কয়জন সত্যবাদিতাকে জীবনের আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করেছি ? যদি না করে থাকি তবে কি করে প্রকৃত মুসলামান হতে পেরেছি ? দুনিয়ার যত পাপ মিথ্যা থেকেই উদ্ভুত হয়। মিথ্যা মানুষকে মোহমুগ্ধ করে সত্যের আওতা থেকে […]

ঝড়-তুফান : দুর্যোগে কি করার নির্দেশ দেয় ইসলাম?

ইসলাম বলে প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রকৃতির সৃষ্টি নয়, বরং জল-স্থল, চন্দ্র-সূর্য, আলো-বাতাস তথা প্রকৃতির প্রতিটি উপাদানে যা ঘটে তা মহান আল্লাহর ‘কুন-ফায়াকুন’ এর ইশারায়। দুর্যোগ-দুর্ঘটনাও তার ইচ্ছারই বহিঃপ্রকাশ। বিপর্যয়ের জন্য দায়ী মানুষের কৃতকর্ম। সমাজে অন্যায়-অনাচার বেড়ে গেলেই প্রাকৃতিক দুর্যোগের আশঙ্কা থাকে বেশি। হাদিসে রসুল (সা.) প্রাকৃতিক দুর্যোগের বিভিন্ন কারণ উল্লেখ করেছেন। তিনি নিজেও উম্মতের ওপর দুর্যোগের […]

গর্ভবতী মহিলাদের রোজা রাখার মাসআলা কী? গর্ভাবস্থায় রোজা রাখতে না পারলে পরে তা রাখতে হবে? কাফফারা দিতে হবে?

গর্ভবতী ও দুগ্ধপোষ্য শিশুর মায়ের জন্য রোজা না রাখার অনুমতি আছে। তারা পরবর্তী সময়ে উক্ত রোজার কাযা আদায় করবে। কাফফারা দিতে হবে না। সূত্র: ক. আল কোরআন: সূরা বাকারাহ: আয়াত ১৮৪ খ. সুনানে আবু দাউদ: রোজা না রাখার অনুমতি অধ্যায়, হযরত ইবনে আব্বাস রা. বণিত হাদিস।

কোনো কারণে কোনো বিধর্মী ব্যক্তির বাড়িতে ইফতার করা কি জায়েজ আছে? বিধর্মী ব্যক্তিকে যাকাত দেওয়া যায় কি না? যদি সে ব্যক্তি পরিচিত বা কর্মচারী হয়?

খাদ্য হালাল হলে বিধর্মী ব্যক্তির বাড়িতেও ইফতার করা যায়। বিধর্মী ব্যক্তি পরিচিত, কর্মচারী বা অপরিচিত যাই হোক না কেন, তাকে যাকাত দেওয়া যাবে না। প্রয়োজনে সাধারণ টাকা থেকে দান করতে হবে। যাকাত মুসলমানদেরই প্রাপ্য। কারণ যাকাত একটি ফরজ ইবাদত। এর প্রাপকদের তালিকা কোরআন শরীফে দেওয়া আছে। এর বাইরে দিলে যাকাত আদায় হবে না।

বাংলা উচ্চারণ দেখে কোরআন তিলাওয়াত করলে কি আরবি পড়ার চেয়ে সওয়াব কম হবে? মোবাইল অ্যাপ দেখে কোরআন পড়া কি ঠিক?

কোরআন আরবি লেখা দেখে পড়াই কর্তব্য। মুখস্থ পড়ার চেয়ে দেখে পড়ার সওয়াব দ্বিগুণ। একটি সওয়াব পড়ার, অপরটি কোরআনের হরফগুলো দেখার। বাংলা উচ্চারণ দেখে কোরআন পড়া কখনোই সহিহ হয়না। এতে অক্ষরের উচ্চারণ ভুল হয়ে কোরআনের অর্থ বিকৃত হওয়ার সম্ভাবনা শতভাগ। এই জন্য আরবি শিখে কোরআন পড়া উচিৎ, নয়ত মুখস্থ করে সঠিক উচ্চারণে পড়া উচিৎ। বাংলা উচ্চারণ […]

গরীবদের ইফতার দেওয়া যায় কি না? দিলে এতিম শিশুকে দেওয়া উত্তম না অসহায় বৃদ্ধকে? ভিক্ষুক পাওয়া না গেলে নিজের দারোয়ান বা শ্রমিককে দেওয়া যাবে কি না?

ইফতার যদি গিফটের মতো দেওয়া হয়, তাহলে গরীব ধনী সবাইকেই দেওয়া যায়। সবাই তা খেতেও পারে। যদি দানের নিয়ত করা হয়, তাহলে কেবল গরীবরাই তা খেতে পারে, ধনীরা নয়। ইফতার যে নিয়তেই দেওয়া হোক, সওয়াব পাওয়া যাবে। অবশ্য গরীবদের দিলে দ্বিগুণ সওয়াব হয়। প্রথমত: রোজাদারকে ইফতার করানোর সওয়াব। দ্বিতীয়ত: দানের সওয়াব। দান পাওয়ার ক্ষেত্রে এতিম […]

কোনো মহিলার যদি প্রস্রাবে ইনফেকশনের কারণে ঘন ঘন পানি পান করতে হয় এবং এ কারণে রোজা রাখতে অপারাগ হয় তাহলে কি তাকে কাফফারা দিতে হবে?

রোগাক্রান্ত হওয়ার কারণে কেউ যদি রোজা রাখতে না পারে তবে সে উক্ত দিন বা দিনগুলোর রোজার কাজা পরবর্তীতে আদায় করবে। কাফফারা দিতে হবে না। প্রমাণ : (১) আল কুরআন : সূরা বাকারাহ, আয়াত-১৮৪, (২) কাওকাবুদ্ দুরয়ী শরহে- কূদুরী : পৃ: ৪০৯, দিল্লি-১৮৯৭।

আমরা অনেকেই মোবাইলে বিভিন্ন ইসলামী পোস্ট শেয়ার করি। এবং মনে করি এটি শেয়ার করলে অনেক নেকী পাওয়া যাবে। এ ধারণা কতটুকু সত্যি?

মোবাইলে ইসলামী পোস্ট দেওয়া বা শেয়ার করা যদি মানুষকে ইসলাম সম্পর্কে জানানোর উদ্দেশ্যে হয়, তাহলে এতে নেকী পাওয়া যাবে। তবে শর্ত হলো, এতে কোনো নাজায়েজ বিষয়ের মিশ্রণ থাকতে পারবে না। নিছক দীন প্রচারের উদ্দেশ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ব্যবহার উলামায়ে কেরাম জায়েজ বলেছেন। আইটি ইসলামের খেদমতে ব্যবহার করা অবশ্যই নেকীর কাজ।